মুক্তিযুদ্ধ

মা আনিসুল হক PDF Download আনিসুল হক

আনিসুল হক রচিত বিখ্যাত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ডাউনলোড লিঙ্ক এই ওয়েবসাইটে শেয়ার করা হলো। যে কেউ সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বইটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আমাদের ওয়েবসাইট থেকে কিভাবে বইটি ডাউনলোড করবেন তা জানার জন্য সম্পূর্ণ লেখাটি পড়তে হবে। বইটি ডাউনলোড এর পূর্বেই চলুন কাহিনী সংক্ষেপ ও বুক রিভিউ জেনে নেয়া যাক।

মা কাহিনী সংক্ষেপ ও বুক রিভিউ

‘মা’ উপন্যাসের রচয়িতা কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক আনিসুল হক। এটি একটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস। উপন্যাসটি বই আকারে প্রথম প্রকাশ লাভ করে ২০০৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। বইটির প্রকাশক সময় প্রকাশনী।

উপন্যাসটি লেখক রচনা করেছেন বাস্তব ঘটনাওর ওপর ভিত্তি করে এবং এই বাস্তব ঘটনাটির সন্ধান তাকে দেন মুক্তিযোদ্ধা ও নাট্যব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী এক বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আজাদ ও তার মায়ের জীবনের সত্য ঘটনার ওপর ভিত্তি করে এই উপন্যাস রচিত হয়েছে।

উপন্যাসটি ইংরেজি ও স্প্যানিশ ভাষায় অনূদিত হয়েছে যথাক্রমে Freedom’s Mother ও La Madre নামে।

আজ আমরা যেই স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে বসবাস করছি, তার স্বাধীনতার জন্য সার্বভৌমত্বের জন্য আমাদের পূর্বপুরুষদের অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছিল, অংশ নিতে হয়েছিলো মুক্তিযুদ্ধে।

সেই যুদ্ধের মাঝেই অগণিত হৃদয় বিদারক, বেদনাদায়ক অনেক ঘটনার জন্ম হয়, তেমনই একটি ঘটনার ভিত্তিতে লেখক তার ‘মা’ নামক উপন্যাসটি রচনা করেন।

উপন্যাসের মূল চরিত্র মাগফার আহমেদ চৌধুরী আজাদের বাবা ইউনুস চৌধুরী ছিলেন ঢাকার একজন বিত্তশালী ব্যক্তি আর চৌধুরী আজাদের মা ছিলেন সাফিয়া বেগম। ইস্কাটনে অবস্থিত রাজপ্রাসাদতুল্য একটি বাড়িতে তাদের জীবন সুখে কাটছিল।

বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করলে সংসারে আশান্তি আসে। সাফিয়া বেগম ছিলেন আত্মমর্যাদা সম্পন্ন নারী, তিনি কোনোভাবেই স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে পারেননি। তাই ইস্কাটনের সেই বাড়ি ছেড়ে আজাদকে নিয়ে সাফিয়া বেগম জুরাইনের এক খুপড়ি ঘরে উঠলেন।

তারপর থেকে জীবনে দুঃখ-দুর্দশা, অভাব অনটন আসলেও সাফিয়া বেগম ও আজাদ হার মানেননি।

এসবের মাঝেই এক সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিলেন। এরই মধ্যে আজাদের এম.এ শেষ হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশের মানুষ যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়লো। দেশকে রক্ষা করতে আজাদ ও যুদ্ধে যেতে চাচ্ছিলেন কিন্তু কোনোভাবেই মাকে তার বলা হয়ে উঠছিলো না।

কিন্তু বিবেকের তাড়নায় একদিন মাকে বলেই ফেললেন তার মনের কথা। সাফিয়া বেগম একটু ভাবলেন, তারপর বললেনঃ “আমি কী তোকে শুধু আমার জন্যই মানুষ করেছি? এদেশটাও যে তোর মা। যা দেশটাকে স্বাধীন করে আয়।”

মায়ের কাছ থেকে আশীর্বাদ নিয়ে আজাদ রণাঙ্গনে গেলেন। শুরু হলো তার জীবনের আরেক নতুন যুদ্ধ।

একজন গেরিলা যোদ্ধা হিসেবে ঢাকার ক্র‍্যাক প্লাটুনে যোগ দিয়েছিলেন আজাদ। ১৯৭১ সালের আগস্ট মাসে রাজাকারদের হাতে ধরা পরেন আজাদ। তথ্য জানার জন্য আজাদের ওপর অকথ্য নির্যাতন চালানোর পরেও হানাদার বাহিনী তার মুখ থেকে একটি শব্দ ও বের করতে পারেনি।

কোন উপায় না দেখে রাজাকারের দল আজাদের মা কে বলেন ছেলের কাছ থেকে তথ্য বের করে আনতে পারলে তার ছেলেকে মুক্তি দেয়া হবে। এসব শুনে সাফিয়া বেগম ছেলের কাছে গিয়ে বললেনঃ “বাবারে যখন মারবে, তুমি শক্ত হয়ে থেকো। সহ্য কর। কারো নাম যেন বলে দিও না।”

মাকে আজাদ কথা দিয়েছিলেন তিনি কোনো তথ্য ফাঁস করবেন না। জেলের অত্যাচার ও দুর্বিষহ জীবনের কথা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেছিলেনঃ ” মা, ভাত খেতে ইচ্ছা করে। দুইদিন ভাত খাই না। কালকে ভাত দিয়েছিল, আমি ভাগে পাই নাই।” প্রতুত্তরে মা বলেছিলেনঃ “কাল আমি ভাত নিয়ে আসবো।”

এরপরে আজাদের সাথে কি ঘটেছিলো? আজাদের মা স্বাধীন দেশে কেমন ছিলেন? তা জানতে হলে পাঠককে পড়তে হবে আনিসুল হক রচিত ‘মা’ উপন্যাসটি। একজন বাংলাদেশের সাধারণ নাগরিক হিসেবে এই উপন্যাসটি পাঠ করা সকলের জন্য গুরু দায়িত্ব।

মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যত উপন্যাস রচিত হয়েছে এই উপন্যাস সেগুলোর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য কত বাঙালিকে কত বড় বড় মূল্য দিতে হয়েছে তা এই উপন্যাস পড়লে অনুধাবন করা যায়।

মা বইয়ের পিডিএফ ডাউনলোড লিঙ্ক

আপনি কি জানেন কিভাবে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে হয়? যদি না জেনে থাকেন তাহলে এই লেখা টি আপনার জন্য। এই অংশটুকু করার মাধ্যমে আপনি জানবেন কিভাবে খুব সহজে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে হয়।

বইটি পিডিএফ আকারে ডাউনলোড এর জন্য নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন।

মা আনিসুল হক PDF

আমাদের আয়োজন আপনার কেমন লেগেছে তা জানিয়ে কমেন্ট করতে পারেন। ফেসবুকে আপনার বন্ধুদের মাঝে আমাদের ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.