উইংস অব ফায়ার PDF Download (অগ্নিপক্ষ PDF) এপিজে আবদুল কালাম

‘উইংস অব ফায়ার’ বইটির রচয়িতা ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম। এই বইটি এপিজে আবদুল কালামের সর্বাধিক পঠিত বই৷ বইটি ১৯৯৯ সালে প্রথমবারের মতো প্রকাশিত হয়। প্রথম প্রকাশের পর থেকেই বইটি পাঠক সমাজে এত আলোড়ন সৃষ্টি করে যা সচরাচর কোনো বইয়ের ক্ষেত্রে লক্ষ্য করা যায় না।

বইটি যৌথভাবে এপিজে আবদুল কালাম এবং অরুণ তিওয়ারী লিখেছেন। বইটি মূল ভাষা ইংরেজি ও মালায়লাম।

ব্যাপক জনপ্রিয়তার কারণে বইটি বিশ্বের অন্যান্য অনেক ভাষায় অনূদিত হয়েছে। এটি আবদুল কালামের আত্মজৈবনিক গ্রন্থ। তাঁর শৈশব থেকে শুরু করে জীবনের বাস্তবতা,স্বপ্ন এবং সফলতার কথাই পাঠক জানতে পারবেন এই বইটি পড়ে। বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে আবদুল কালামের ধর্মপ্রাণ মা এবং জ্ঞানী পিতা কে।

এ পি জে আবদুল কালাম বই pdf

একটি শান্তশিষ্ট ছোট ছেলে পরবর্তী জীবনে কিভাবে পরমাণু বিশেষজ্ঞ এবং ভারতের রাষ্ট্রপতি হয়ে যায় সেই সব কথাই রয়েছে এই বইটিতে। বইটিতে লেখকদের বর্ণনার দক্ষতার কারণে তৎকালীন ভারতের চিত্র স্পষ্টতই পাঠকের চোখের সামনে পরিষ্কাররুপে ফুটে ওঠে। ১৯৩০-১৯৫০ সালের সেই সময়ে ভারতের মানুষের জীবনযাত্রা, তাদের চিন্তাচেতনা, বিজ্ঞান নিয়ে তাদের ভাবনা ফুটে উঠেছে এই বইটি তে।

আবদুল কালামের জন্ম দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ুর রামেশ্বরম শহরে। সেখানেই তাঁর বেড়ে ওঠা। দক্ষিণ ভারতের এই শহরটি বলা চলে ধর্মীয় শহর। শহরটি একটি ধর্মূয় শহর হলেও বইয়ের বর্ণনা থেকে বোঝা যায় সবসময় এখানে বিরাজ করতো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি।

তাঁর জবানে জানা যায়–“বিখ্যাত শিব মন্দির, যা রামেশ্বরমকে তীর্থযাত্রীদের কাছে এত পবিত্র করে তুলেছিলো, তা ছিলো আমাদের বাড়ি হতে মাত্র দশ মিনিটের পথ ধরে। আমরা মুসলমান ছিলাম,তবে বেশ কয়েকটি হিন্দু পরিবারও ছিলো।তারাও মুসলিম প্রতিবেশীদের সাথে মিলেমিশে, সুখে-দুঃখে একই সাথে জীবন যাপন করতো।”

অগ্নিপক্ষ pdf download

এই বর্ণনা সেখানকার সম্প্রীতির চিত্রই লক্ষ্য করা যায়। বইটির শুরুতেই আমরা আবদুল কালামের পিতার বর্ণনাও পাই৷ তিনি ছিলেন একজন জ্ঞানী এবং পন্ডিত ব্যক্তি। খুব বেশি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা না থাকলেও তাঁর ছিলো সহজাত জ্ঞান। সবাই তাঁকে শ্রদ্ধা করেও চলতো। পিতার সাথে উপাসনালয়ে যাওয়ার স্মৃতিচারণও তিনি এই বইতে করেছেন।

বইটি পড়লে পাঠক খুব চমৎকার কিছু বানীর দেখা পাবেন যেগুলো কখনো আবদুল কালামকে কেউ উপদেশ হিসেবে বলেছেন আবার কখনো আবদুল কালাম নিজেই বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেছেন। আবদুল কালামের ইচ্ছা ছিলো তিনি বিমান বাহিনী তে যোগ দেবেন৷ কিন্তু ভাগ্য সহায় না হওয়ার কারনে তা পারেননি। এজন্য তিনি কিছুটা মনোক্ষুণ্ণ হন। এ ঘটনার পরে স্বামী শিবানন্দের সাথে তাঁর সাক্ষাত হয়।

তখন স্বামী শিবানন্দ তাঁকে এই উপদেশটি দেন– “আপনি নিজের নিয়তিকে গ্রহণ করুন এবং নিজের জীবন নিয়ে এগিয়ে যান। বিমানের পাইলট হওয়া আপনার নিয়তিতে ছিলো না। আপনি যা হওয়ার জন্য নির্ধারিত তা এখনো প্রকাশ করা হয়নি৷ এরপরই তিনি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণার কাজে যুক্ত হওয়ার সুযোগ পান এবং ১৯৬৩ সালে রকেট উৎক্ষেপনের প্রক্রিয়া শেখার প্রশিক্ষণের জন্য নাসায় যান। সেখানে তিনি ভারতবর্ষের প্রতিনিধিত্ব করেন।

এ পি জে আব্দুল কালামের আত্মজীবনী pdf download

শুরু থেকেই এ্যরোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর প্রতি তাঁর আগ্রহ এবং ভালেবাসা ছিলো। সেই ভালোবাসা থেকেই পরবর্তীতে তিনি ভারতের প্রথম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের ক্ষেত্র সৃষ্টি করেন। দেশের মেধাবী তরুনদের কাজে লাগিয়ে ১৯৮০ সালে তিনি সফলভাবে উৎক্ষেপণ করেন ভারতের প্রথম স্যাটেলাইট। ভারতের কৃত্রিম উপগ্রহ এবং ক্ষেপণাস্ত্র সম্পর্কিত প্রচুর তথ্যাদি পাওয়া যাবে এই বইটি থেকে।

এই বইটি পাঠ করলে পাঠক মিসাইলম্যান খ্যাত আবদুল কালাম কে দেখতে পাবেন নানা ভূমিকায়। কখনো পুত্র, কখনো ভাই, কখনো ছাত্র, কখনো শিক্ষকরুপে তিনি পুরো বইটিতে বিরাজ করছেন। আবদুল কালামের কবিতার প্রতি অনুরাগ ও পাঠক লক্ষ্য করবেন এই বইটিতে।

তিনি এখানে নিজের লেখা কিছু কবিতা এবং নিজের প্রিয় কিছু কবিতা সংযোজন করেছেন যা এই বইটিকে আরো সুখপাঠ্য করে তুলেছে। এপিজে আবদুল কালাম সর্বসাধারণের মাঝে একজন বিখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী এবং ভারতের সফল একজন রাষ্ট্রপতি হিসেবে পরিচিত। কিন্তু এই বইটি পড়লে পাঠক ব্যক্তি আবদুল কালামকে খুব কাছে থেকে অনুভব করতে পারবেন, তাঁর কঠোর পরিশ্রম, অধ্যবসায় এবং জীবনমুখি উপদেশ থেকে অনুপ্রাণিত হতে পারবেন।

এ পি জে আব্দুল কালামের আত্মজীবনী pdf download

এ পি জে আবদুল কালাম বই pdf

জীবনী বই pdf

দ্য আলকেমিস্ট pdf

দ্য পাওয়ার অব হ্যাবিট pdf download

সিক্রেটস অব জায়োনিজম pdf download

Wings of fire pdf

অগ্নিপক্ষ pdf download

Exit mobile version