উপন্যাস

এনিম্যাল ফার্ম PDF Download জর্জ অরওয়েল

‘এনিম্যাল ফার্ম’ উপন্যাসটি ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক জর্জ অরওয়েল। ১৯৪৫ সালের ১৭ আগস্ট এই উপন্যাসটি প্রথম প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই বইটি ব্যাপক সাড়া সৃষ্টি করে৷ কারণ এটি একটি রুপকধর্মী উপন্যাস। এই উপন্যাসটির প্রতিটি চরিত্রের পেছনে রয়েছে বাস্তবতার ছাপ। লেখকের ভাষ্যে, বইটিতে ১৯১৭ সালের রুশ বিপ্লবের সূচনা এবং বিপ্লব পরবর্তী সময়ে জোসেফ স্তালিনের শাসনামলের প্রতিফলন ঘটেছে।

এই বইটিকে টাইম ম্যাগাজিন ইংরেজি ১০০ সেরা বইয়ের মধ্যে স্থান দিয়েছে। এছাড়াও বিংশ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ উপন্যাসের তালিকায় এর অবস্থান ৩১ তম। বইটির লক্ষণীয় বিষয় হলো মানুষ চরিত্রের পাশাপাশি একদল প্রাণী চরিত্রও রয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছে শূকর, ঘোড়া এবং গাধা।

Animal farm এর বাংলা অনুবাদ

উপন্যাসটির গল্প গড়ে উঠেছ ম্যানর ফার্মের মালিক মি.জোন্স এবং তার ফার্মের পশুদের নিয়ে। মালিক জোন্স এই ফার্ম থেকে লাভবান হলেও সে এই পশু গুলোকে খুব অত্যাচার করতো। তাদের ঠিক মতো খাবার সরবরাহ করা হতো না এবং প্রতিদিন পানশালা থেকে মদ খেয়ে ফিরে সে পশুদের ওপর অত্যাচার চালাতো।

এভাবেই দিনের পর দিন যেতে থাকে। পশুগুলোও অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে। একদিন পশুদের মধ্যে সবচেয়ে বয়োজ্যেষ্ঠ শূকর “বৃদ্ধ মেজর” একটি সভার ডাক দেয়। ফার্মের সকল পশু তার ডাকে সাড়া দিয়ে সভায় উপস্থিত হয়। বৃদ্ধ মেজর শুধু বয়স্কই ছিলো না। সে ছিলো অনেক জ্ঞানী এবং অভিজ্ঞ। সে সকল পশুদের সামনে নিজেদের শোচনীয় অবস্থার কথা তুলে ধরে, তাদের নির্যাতনের কথা বলে, তাদের খাদ্যের অভাবের কথা বলে।

এনিমেল ফার্ম সারমর্ম

এক পর্যায়ে সে এসব থেকে মুক্তির কথাও বলে। সে অন্যান্য পশুদের একটি বৈষম্যহীন ফার্মের স্বপ্ন দেখায়। মানুষ জাতির অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস যোগায়। তার এসকল কথায় ফার্মের পশুদের মাঝে বিপ্লবী মনোভাব গড়ে ওঠে এবং তারা ঐক্যবদ্ধ হয়। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই বৃদ্ধ মেজর মারা যায়। সবার মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসলেও থেমে থাকেনা তাদের বিপ্লবী চেতনা।

তাদের নেতৃত্ব দিতে এগিয়ে আসে আরেক বুদ্ধিমান শূকর। তারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে অতর্কিতে আক্রমণ চালায় এবং মালিক জোন্সকে ফার্ম থেকে বিতাড়িত করে। সেই থেকে ম্যানর ফার্মের নাম বদলে রাখা হয় এনিম্যাল ফার্ম। ঘোড়ার জিন, ঠুলি,চাবুক সহ সকল অত্যাচারের চিহ্নকে পুড়িয়ে ফেলা হয়।

Animal Farm Bangla PDF

সকল পশুর সমান অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষে সবার মতামত নিয়ে তৈরী করা হয় ৭ টি নীতিমালা।স্নোবল নামক শূকর এই নীতিমালা গুলো লিখে ফার্মের দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখে। নেপোলিয়ন ও স্নোবল নামক দুই শূকর এই পশু স্বাধীনতা আন্দোলনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে৷ তারাই পরবর্তী তেও তাদের সকল কাজের নেতৃত্বে থাকে।

পশুরা নিজেদের মতো জীবনযাপন করতে থাকে। নিজেরা ফসল বোনে, ফসল তোলে, মাড়াই করে এবং সুখে শান্তিতে থাকে। স্নোবলের বুদ্ধিতে বাচ্চা পশুদের শিক্ষিত করার লক্ষ্যে গ্রহণ করা হয় শিক্ষা কর্মসূচী। কিন্তু এরমধ্যেই একদিন পশুরা খবর পায় মি.জোন্স একদল বন্দুকধারী লোক নিয়ে তাদের ফার্মের দিকে এগিয়ো আসছে। তারা সকলে ভীত হয়ে যায়।

Animal Farm Summary Bangla

নিজেদের স্বপ্নের ফার্মে হারানোর ভয়ে আতংকিত হয়ে পরে। তারা কি মি.জোন্স এর হাত থেকে রক্ষা পায় নাকি হারাতে হয় তাদের আদর্শ ফার্ম কে? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে পাঠককে অবশ্যই পড়তে হবে জর্জ অরওয়েলের অনবদ্য সৃষ্টি ‘এনিম্যাল ফার্ম’। এটি শুধু একটি উপন্যাসই নয় এই কাহিনীর পিছনে লুকিয়ে আছে রাশিয়ার রাজনৈতিক ইতিহাস।

রুশ বিপ্লবের শুরু এবং ফলাফলের মতো এত বিশাল একটি ধারণা কে জর্জ অরওয়েল তুলে ধরেছেন সহজপাঠ্য একটি উপন্যাসের মাধ্যমে। বিশ্বসাহিত্যের ইতিহাসে রচিত অন্যতম শ্রেষ্ঠ এই ব্যাঙ্গাত্নক রচনাটি উপভোগের সুযোগ পাঠকের কোনমতেই হাতছাড়া করা উচিত নয়।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *