থ্রিলার

আরোহী অন্ধ প্রহর PDF Download রবিন জামান খান

বাংলাদেশের বিখ্যাত একজন থ্রিলার লেখক হলেন রবিন জামান খান। তার লেখা সবগুলো থ্রিলার অনেক বিখ্যাত বাংলাদেশের পাঠকদের কাছে। এমনই এক জনপ্রিয় থ্রিলার হলো “আরোহী অন্ধ প্রহর”। এটি পাঠকদের কাছে বেশ সমাদৃত হয়েছেন। রবিন জামানের সুন্দর সাবলীল ও ভাষা নির্বাচনের জন্য তার লেখাগুলো অনেক বেশি পরিচিতি লাভ করেছেন। তার লেখায় বিষয়বস্তুকে অনেক সহজ ভাবে পাঠকদের সামনে তুলে ধরেন এইজন্য পাঠকদের মনোযোগ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একই রকম থাকে।

“আরোহী অন্ধ প্রহর” রবিন জামান খানের এক ধরনের থ্রিলার উপন্যাস। বইটি প্রথম প্রকাশ করেছে 2017 সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। বইটি প্রকাশ করেছেন বাতিঘর প্রকাশনী। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন ডিলান। বইটি হার্ডকভার ছাপা হয়েছে। বইটিতে মোট পৃষ্ঠা সংখ্যা রয়েছে 190 টি। বর্তমান বাজারে বইটির মুদ্রিত মূল্য হল 140 টাকা। অসাধারণ এই বইটির হার্ডকপি যারা এখনো সংগ্রহ করতে পারেননি তারা আমাদের ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখবেন এই বইয়ের লিংক দেয়া আছে, সেখান থেকেই ডাউনলোড দিয়ে পড়ে নিতে পারবেন।

কাহিনী সংক্ষেপ

রবিন জামান খান একজন দক্ষ অনুবাদক হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশে। তার অনুবাদে সবাই মুগ্ধতার ছোঁয়া পায়। এই উপন্যাসটিতে লেখক শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এক নতুন আশার সূচনা করেছেন। এটি মূলত একটি শিশুতোষ উপস্থাপনা। এখানে মূলত দুটি গল্প লেখা হয়েছে।

আমাদের সমাজে এমন কিছু শ্রেণীর লোক আছে যারা সবসময় মানুষকে নিয়ে সমালোচনা করতে বেশি পছন্দ করে। আপনি যতই ভাল কাজ করুক না কেন ঐসব মানুষগুলো আপনার ভুল ধরার চেষ্টা করবে। আমরা যে কাজই করে না কেন হোক ভালো আর মন্দ কেউ না কেউ অবশ্যই সেটা কি খারাপ বানানোর চেষ্টা করবে। আরোহী গল্পে তেমনটাই তুলে ধরেছেন লেখক।

ইফতি নামের একজন ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ছিলেন। সে বরাবরই সহজ সরল জীবনযাপন করতেন। সে একজন শিক্ষক হওয়া সত্বেও সাইকেল চালিয়ে যাতায়াত করতেন। এই ব্যাপারটা অনেকের কাছে দৃষ্টিকটু মনে হতো। সবাই ভাবতো সে একজন শিক্ষক হয়ে কেন সাইকেল চালিয়ে যাওয়া-আসা করবে?

অনেকে আবার তাকে তার বেতনের কথা জিজ্ঞেস করত? ইফতি এসব কথা শুনতে শুনতে অভ্যস্ত হয়ে গেছেন। সে আর তেমন কিছু মনে করেন না। অন্য কেউ হলে হয়তো অনেক মন খারাপ করতেন এবং নিজের অভ্যাসটা চেঞ্জ করতেধ। কিন্তু ইফতি খুব সাধারন একটা মানুষ। কে কি বলল না বলল তাতে তার তেমন একটা আসে যায় না।

তার মতে জীবনটা তো অনেক ছোট। এই ছোট্ট জীবনে তার নিজের মতো করে বেঁচে থাকাটাই আনন্দের বা চরম প্রাপ্তি। সে তার নিজের মতো করেই জীবন পরিচালনা করত।

ইফতি একদিন রাস্তার পাশে চা খেতে যায়। হঠাৎ ইফতির চোখ পড়ে এক গাড়ির ডিকির দিকে। ইফতির মনে হল গাড়ির ডিকিতে কেউ কোনো লাশ লুকিয়ে রেখেছে, হয়তো সেই লোকটা নিজেও জানেনা যে এরকম ঘটনা ঘটতে পারে। এরপর ইফতি এই ঘটনার রহস্য উদঘাটনের জন্য লেগে পড়ে।

শেষ পর্যন্ত কি রহস্যের সমাধান বের করতে পারে ইফতি?? তাহলে বইটা তো অবশ্যই পড়তে হবে। আমি এখানে শুধু আরোহী গল্পের সামান্য কিছু অংশ তুলে ধরলাম। অন্ধ প্রহর গল্পটাও এমনই সাসপেন্সিব। এই দুটো গল্প অসাধারণ। আপনারা পড়তে লাগলে উপন্যাসটির শেষ না করে উঠতে পারবেন না। তাই আর দেরি না করে বইটা পড়ে ফেলুন। কথা দিতে পারি কিছুটা সময় আনন্দে কাটবে।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.