উপন্যাস

আসমানীরা তিন বোন PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

প্রিয় পাঠক, আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে গিয়ে আসমানীরা তিন বোন বইটি ডাউনলোড করতে পারবেন। জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্যার আসমানীরা তিন বোন বইটিতে আসমানিদের তিন বোনের অসহায় জীবনের কথা তুলে ধরেছেন খুব সুন্দর ভাবে।

নারীরা পিতা-মাতার স্নেহ ছাড়া কিভাবে বেড়ে ওঠে এবং প্রতিকূল সমাজে কিভাবে তারা অন্য মানুষরূপী শয়তানের হাত থেকে চলতে শিখে, তা লেখক তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। আসমানীরা তিন বোন বইটি অন্যপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে। চমৎকার এই বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ 96 এবং বইটির মুদ্রিত মূল্য 250 টাকা। সমকালীন এই উপন্যাসটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং আপনারা পড়ে আনন্দিত হবেন।

আসমানীরা তিন বোন কাহিনী সংক্ষেপ

আসমানী এবং জামদানি দুই বোন। তার বাবা ভিক্ষা রত অবস্থায় শুনতে পায় যে তার একটি কন্যা সন্তান হয়েছে। তাদের বাবার নাম জমির আমি। যেহেতু তার বাবা ভিক্ষা রত অবস্থায় মেয়ের জন্মের কথা শুনে সে তো মেয়ের নাম রাখেন পয়সা। অর্থাৎ আসমানী, জামদানি এবং পয়সা হল তিন বোন। তবে আসমানের বাবা জমির আলী একজন অলস ভিক্ষুক।

দার্শনিক ভাবধারার লোক বলে তিনি জীবনে কিছু করতে পারেনি এবং সংসারে অভাব-অনটন থাকায় আসমানের মা একসময় তাদের তিন বোন এবং স্বামীকে ছেড়ে চলে যাই। আসমানির বাবা জমির আলী তার স্ত্রীকে খোঁজার জন্য ইন্ডিয়ার দিকে রওনা হয়। কিন্তু পথিমধ্যে সে পুলিশের হাতে অ্যারেস্ট হয় এবং তিন বোন পুরোপুরিভাবে একা হয়ে যায়।

এই বইটির ঘটনাকাল হঠাৎ করে পরিবর্তন হয়ে যায়। আসমানিদের ছোটকাল থেকে 15 বছর পরের ঘটনা আমরা বইটিতে খুঁজে পাই। আসমানীরা তিন বোন এখন বড় হয়েছে এবং তারা এখন একটি সার্কাসের দল এ কাজ করে। সার্কাস দলের দলনায়ক হারুন সরকার তাদের তিন বোনের দায়িত্ব নেন এবং পিতৃস্নেহে তাদের দেখভাল করেন। যখন আসমানের ছোট বোনের বয়স তিন বছর তখন তারা সার্কাসের দলে ঢুকে এবং এখন পর্যন্ত তারা সার্কাসের দলের সঙ্গে রয়েছেন। মানুষদের বিনোদন দেয় তাদের কাজ।

এ বইটিতে আরেকটি নতুন চরিত্র উঠে এসেছে এবং সেই চরিত্রের নাম হল বশির মোল্লা। এই বশির মোল্লা একজন ভাটি অঞ্চলের মানুষ এবং প্রচন্ড চালাক ধরনের মানুষ। আসমানিদের তিনবোনের রূপের মোহে পড়ে সে এই সরকার দল থেকে কিনতে চাই। যেহেতু হারুন সরকার আপনার ঈদের তিন বোনকে পিতৃস্নেহে বড় করে তুলেছেন এবং ভালোবাসেন সেহেতু তিনি এ সার্কাস দল কোন ভাবে বিক্রি হতে দেন না। হারুন সরকার আপনাদের জানায় যে, তারা বর্তমানে এই তিন বোনই হবে সার্কাস দলে দলপতি এবং মালিক।

এই বইয়ে সার্কাস দলের প্রত্যেকটি মানুষের চরিত্র খুব সুন্দর ভাবে ফুটে উঠেছে। তাছাড়া আসমানীরা তিন বোন এর চরিত্র সমাজের অবহেলিত ও অবাঞ্ছিত মেয়েদের প্রতিচ্ছবি হয়েছে। মানুষ রুপি শয়তান বা মানুষরূপী যে সকল মানুষ আমাদের আশেপাশে চলা ফেরা করে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি অসহায় এতিম মেয়ের প্রতি কেমন তাহলে খুব সুন্দর ভাবে তুলে ধরেছেন। অবশেষে আসমানের বাবা একদিন ফিরে আসেন এবং সার্কাস দলে তার মেয়েদেরকে দেখে চিনতে পারেন।

গল্পের শেষে পয়সা একজন বিদেশী যুবকের সঙ্গে পরিণয় জড়িয়ে পড়েন এবং এই বিদেশী যুবক বাংলা জানে বলে তাদের সম্পর্ক এগোতে থাকে। গল্পের শেষটা হ্যাপি এন্ডিং হবে যা পাঠককে রোমাঞ্চিত করবে। তাই আসমানিদের অসহায় তিন বোনের কাহিনী জানতে হলে এবং চমৎকার এই বইটি পড়তে হলে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করে নিন এবং পড়ে ফেলুন।

আসমানীরা তিন বোন PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.