উপন্যাস

একটি খুনের নেপথ্যে PDF Download নজরুল ইসলাম

বর্তমান সময়ের এক পরিচিত মুখ হলো নজরুল ইসলাম। বাংলাদেশের সাহিত্যাঙ্গনে নজরুল ইসলামের ব্যাপক সফলতা লক্ষ্য করা যায়। তিনি তার প্রকাশভঙ্গির মাধ্যমে পাঠকদের কাছে খুব সহজেই পৌঁছাতে পেরেছেন। তার রচিত সবগুলো উপন্যাসই বেশ জনপ্রিয়। যারা থ্রিলার বই অনেক পছন্দ করেন বা যারা নতুন প্রজন্মের লেখকদের বই পছন্দ করেন তাদের অবশ্যই নজরুল ইসলামের এই উপন্যাসটি পড়া উচিত। “একটি খুনের নেপথ্যে” এই উপন্যাসটি তারুণ্য উপন্যাসের মতো বিখ্যাত।

“একটি খুনের নেপথ্যে” নজরুল ইসলামের একটি জনপ্রিয় থ্রিলার উপন্যাস। বইটি প্রকাশ করেছে বাতিঘর প্রকাশনী। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় 2019 সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। বইটি মূলত ক্রাইম থ্রিলার জনারে লেখা। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন ডিলান। বইটিতে মোট পৃষ্ঠা সংখ্যা রয়েছে 238 টি। বর্তমান বাজারে বইটির মুদ্রিত মূল্য 196 টাকা। এই অসাধারণ বইটি যারা এখনো সংগ্রহ করে উপরে উঠতে পারেনি, তাদের সুবিধার্থে আমাদের ওয়েবসাইটে গেলেই তারা এই বইয়ের লিঙ্ক পেয়ে যাবে এবং সেখান থেকে ডাউনলোড দিয়ে বিনামূল্যে বইটি পড়ে নিতে পারবে।

কাহিনী সংক্ষেপ

এই উপন্যাসটি লেখক নজরুল ইসলামের প্রথম উপন্যাস। এই বইটিতে অনেকটাই নস্টালজিয়া লক্ষ্য করা যায়। বইটিতে লেখক অনেক বাস্তবতার চিত্র তুলে ধরেছেন। উপন্যাসটি খুব অল্প সময়ে পাঠকদের মন জয় করে নিয়েছে তার একমাত্র কারণ হল দারুন প্লট নির্বাচন। লেখকের প্রকাশভঙ্গি টাও অসাধারণ ছিল। আবার গল্পের প্রতিটা লাইনে লাইনে টানটান উত্তেজনা ও ভরপুর টুইস্ট ছিল।

এই উপন্যাসটি লেখক খুব সাদামাটা জীবনের একটা ঘটনা থেকে নিয়েছেন। আসলে আমরা চারপাশে প্রতিদিনই এমন অনেক ঘটনা দেখি, শুনি যেটা পুরোপুরিই একটা উপন্যাসের গল্পের স্বরূপ। আর এই ঘটনার পেছনে মুখোশধারী কিছু মানুষের অন্যায়-অপরাধ ও প্রতিহিংসার যে বাস্তব চিত্র সেটাই লেখক এখানে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। লেখক এই উপন্যাসের মাধ্যমে জনসমাজকে সচেতন করে তোলার প্রচেষ্টা করেছেন।

আমি এখানে উপন্যাসের সামান্য কিছু অংশ তুলে ধরব বাকিটা অবশ্যই আপনারা বইটা সম্পূর্ণ পড়ে জেনে নিবেন। কারণ আমি যদি এখানে সম্পূর্ণ গল্পটা বলে দিই, তাহলে আপনাদের পড়ার আগ্রহটা কমে যাবে।

ঢাকার রমনা পার্ক প্রতিদিনই সকালে স্বাস্থ্য সচেতন মানুষের ভিড়ে পরিপূর্ণ থাকে। সেই জনমানবের ভিড়ের মধ্যে খুন হয় পুলিশের ক্রাইম নার্কোটিকস ওয়েপন এন্ড ড্রাগস ডিপার্টমেন্টের আইজি ইবনে হাদী। কিন্তু আশ্চর্যজনক বিষয় হল এই খুনের খুনি ও নিজেই আত্মহত্যা করে।

সেই পুলিশের খুনের তদন্তের ভার পায় হোমোসাইড ডিপার্টমেন্টের অফিসার আসিফ ও তার সহকর্মী জুনায়েদ। তাদেরকে সময় দেয়া হয় এক সপ্তাহ। তারা তদন্ত করতে করতে অনেক রহস্য তাদের সামনে আসতে শুরু করে। তো তিন দিন পরে কেসটি চলে যায় পিবিআই ডিপার্টমেন্টের হাতে।

যে নতুন অফিসার এই কেসের দায়িত্ব নেয়, সে আর কেউ নয় সে হল আসিফের ex-girlfriend অহির। তারপর তারা দুজন মিলেই এই কেসের তদন্ত শুরু করে। একটি খুনের পেছনে দুটি সংস্থা তদন্ত করছে একটি হল হোমোসাইড আরেকটি হলো পিবিআই।

তারা পরে জানতে পারে এই খুনের সাথে জড়িয়ে আছে আরও কয়েকটি খুনের গল্প। তারা পড়ে জানতে পারে এই খুনের পেছনে রয়েছে অন্ধকার জগতের অনেক অজানা গল্প। শেষ পর্যন্ত কি তারা এই কেসের রহস্যের সমাধান করতে পেরেছিল? জানতে হলে বইটি অবশ্যই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে। সাসপেন্সিব এই বইটি যারা এখনো পড়েননি তারা এখনই পড়ে ফেলুন। আশা করি অনেক ভাল লাগবে।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.