উপন্যাস

কবি PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

কবি PDF Download হুমায়ূন আহমেদ, আপনি কি হুমায়ূন আহমেদ রচিত কবি উপন্যাসটি খুঁজছেন? তাহলে এই ওয়েবসাইট থেকে খুব সহজেই উপন্যাস পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন। আমরা এখানে উপন্যাসের সারসংক্ষেপ, বই রিভিউ, এবং কিভাবে সম্পূর্ণ ফ্রিতে পিডিএফ ডাউনলোড করবেন তা আলোচনা করব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

কবি হুমায়ূন আহমেদ সারসংক্ষেপ

কবি উপন্যাসটি লিখেছেন জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। কবি উপন্যাস হুমায়ুন আহমেদ কবিদের জীবন, তাদের জীবন ব্যবস্থা, তাদের জীবনের উত্থান-পতন, তাদের ভিতর শিল্পের ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়গুলো ফুটে উঠেছে।

কবিদের জীবনব্যবস্থায় বিশেষ কিছু মুহূর্তে মাথায় কবিতা আসা বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন লেখক। হুমায়ূন আহমেদ বলেছেন “কবি উপন্যাসে কিছু কবিতা ব্যবহার করতে হয়েছে। অতি বিনয়ের সঙ্গে জানাচ্ছি কবিতা গুলি আমার লেখা। পাঠক-পাঠিকারা আমার দুর্বল গদ্যের সঙ্গে পরিচিত।

সেই গদ্য তারা ক্ষমাসুন্দর চোখে গ্রহণ করেছেন। কবিতাগুলোও করবেন এই অসম্ভব আশা নিয়ে বসে আছি। ক্ষমা পেয়ে পেয়ে আমার অভ্যাস হয়ে গেছে খারাপ হয়ে।

কবি উপন্যাস আলোচনা

কবি উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র আতাহার। আতাহারের বাবা একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। আতাহার তার এক ছোট ভাই এবং বোন মিলি কে নিয়ে তাদের সংসার। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের পরিবারের কোনো আয়ের এর উৎস না থাকায় আতাহারের পিতা এখনো ব্যাচে প্রাইভেট পড়ান। এই টাকাটাই তার পরিবারের আয়ের রাস্তা।

ছোট ভাই লেখাপড়ায় খুব ভালো, অনেক লেখাপড়া করে।কিন্তু তার সমস্যা হল পরীক্ষার হলে গিয়ে তার সব প্রশ্নের উত্তর ভুলে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে। এজন্য সে ফাইনাল পরীক্ষায় টিকতে পারে না। ছোট বোন মিলির টাকার অভাবে বিয়ে দিতে পারেনা আতাহারের বাবা।

তাদের পরিবারে অর্থাভাব লেগেই থাকেম আতাহার প্রায়ই বাবার চোখ ফাঁকি দিয়ে পরিবার থেকে দূরে সরে থাকে এবং কবিতা চর্চা করে। আতাহারের বন্ধু সাজ্জাদ এখানে আরেকটি চরিত্র। আতাহার প্রায়ই সাজজাদের বাড়িতে যাই।

কবি উপন্যাসের প্রশ্ন উত্তর

সাজ্জাদ এর বাবার নাম রশিদ সাহেব একজন ভাবগম্ভীর ধরনের মানুষ। হোসেন সাহেব আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী। তার পরিবারে কোনো অভাব নেই। কিন্তু তিনি সবচেয়ে বেশি চিন্তিত তার স্ত্রীর এই সংসার ছেড়ে চলে যাওয়া এবং স্ত্রী সংসার ছেড়ে চলে যাওয়ার প্রভাব ছেলের সাজ্জাদের উপরে পড়ে এবং সাজ্জাদ একসময় মাদকের নেশায় ডুবে পড়ে।

যার জন্য তাকে পুনর্বাসন কেন্দ্রে পাঠানো হয়। দুনিয়ার কোন কাজেই তার আগ্রহ থাকে না। তার বাবা তাকে একটি চাকরি জোগাড় করে দিলেও সে চাকরিতে দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে না। সে চাকরি ছেড়ে চলে আসে এবং আবার মাদকের দুনিয়ায় ফেলে দেয়।

সাজ্জাদ এর বাড়িতে আতাহার প্রায়ই আসে তাদের সঙ্গে দেখা করার জন্য অথবা সকালের নাস্তা খাবার জন্য। সাজ্জাদের বোন সাজ্জাদকে সকালের নাস্তা দেন এবং বিরক্তিভাব প্রকাশ করেন কিন্তু পরক্ষণে আমরা দেখতে পাই নিতু সাজ্জাদকে অনেক ভালোবাসে কিন্তু কেউই কারও কাছে এই কথা প্রকাশ করে না।

এত কথা বলার ধরণ টা কিছুটা অংশ তারপরেও সে আতাহারের সঙ্গে কখনো ভালো কখনো খারাপ ব্যবহার করতে থাকে। এখানে আমরা দেখতে পাই সুবর্ণের সম্পাদক এর মাধ্যমে মজিদের কবি হয়ে ওঠা। সম্পাদক গণি ভাইয়ের চরিত্র হিসেবে কিন্তু কবি উপন্যাসের প্রত্যেকটি চরিত্র এর কথোপকথন কেন্দ্রীয় চরিত্রের মতো মনে হয়েছে।

এসেছেন ময়না ভাই, আতাহারের বন্ধু আব্দুল্লাহ সাহেবের কথা এবং তার স্ত্রী নিতুর কথা। একসময় আতাহারের বাবা মেয়ের বিয়ের দেন একজনের সঙ্গে যার নাম ফরহাদ। তারা যখন ট্রেনে করে নিজের বাড়িতে যাই তখন ছোট ভাইকে নিয়ে যায়। আতাহারের কবিমন তার বোনের জন্য একটি কবিতা রচনা করে। কবিতাটি নিম্নরূপ-

শোন মিলি
দুঃখ তার বিষ মাখা তীরে তোকে, বিধে বারংবার তবুও নিশ্চিত জানি একদিন হবে তোর সোনার সংসার, উঠোনে পড়বে এসে এক ফালি রোদ তার পাশে শিশু গুটিকয়, তাহাদের ধুলোমাখা হাতে ধরা দেবে পৃথিবীর সকল বিস্ময়!
আতাহারের কবিমন বিভিন্ন পরিস্থিতিতে বিভিন্ন কবিতা বানাতে থাকে।

সব কিছুর মধ্যেই সে যেন কবিতা খুঁজে পাই কিন্তু তার জীবনের ব্যর্থতা তাকে ঘুরেফিরে আঁকড়ে ধরে। তার বন্ধু সাজ্জাদ ও মজিদের জীবনে অন্য রকম ভাবে পরিচালিত হতে থাকে। সাজ্জাদ আক্রান্ত হতে থাকে মাদকের করাল গ্রাসে।

কবি হুমায়ুন আহমেদ PDF Download

মজিদ যেখানে গিয়ে শিক্ষকতা করে সেখানে এক ছাত্রীর সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে এবং তার সাথে তার বিবাহ হয়। এভাবে তাদের জীবন চলতে থাকে এবং আতাহার আস্তে আস্তে অসুস্থ হতে থাকে এবং সে ভীষণভাবে নিতুকে মনে করতে থাকে প্রবল ঘরের মধ্যেও তার মাথায় আসতে থাকে কবিতা।

একটা ঝকঝকে রঙিন কাঁচ পোকা
হাঁটতে হাঁটতে একঝলক রোদের মধ্যে পড়ে গেল।
ঝিকমিক উঠলো তার নকশাটা লাল-নীল-সবুজ শরীর।
বিরক্ত হয়ে বলল ,রোদ কেন?
আমি চাই অন্ধকার। চির অন্ধকার।
আমার ষোলটা পায়ে একটা ভারী শরীর বয়ে নিয়ে যাচ্ছে-
অন্ধকারকে দেখব বলে।
আমি চাই অন্ধকার। চির অন্ধকার।

কবি উপন্যাসটিতে আতাহার নামক যে কবির কথা উল্লেখ করা হয়েছে সেই কবির উত্থান, পতন, ব্যর্থতার কথা ফুটে উঠেছে। কবিদের জীবন প্রণালী ফুটে উঠেছে। উপন্যাসটি ব্যক্তিবিশেষের কাছে একটি অবশ্যই পঠনীয় উপন্যাস।

কবি হুমায়ূন আহমেদ পিডিএফ ডাউনলোড

আশা করব আমাদের রিভিউটি ভালো লেগেছে। আপনি যে কোন লাইব্রেরী থেকে বইটি কিনতে পারবেন। বা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবেন। এ জন্য নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন এবং বইয়ের পিডিএফ সংগ্রহ করুন।

আমাদের ওয়েব সাইটটি আপনার কেমন লেগেছে তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার যেকোনো মতামত বা পরামর্শ জানাতে নিচে কমেন্ট করুন। আপনার যে কোন ধরনের সমালোচনা সাদরে গ্রহণ করা হবে। আমাদের ওয়েবসাইট ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। নিজে বই পড়ুন এবং অন্যকে বই পড়তে উৎসাহিত করুন।

কবি উপন্যাস কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়

হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.