উপন্যাস

মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

যারা হুমায়ূন আহমেদ স্যারের শিশুতোষ গল্পের বই পড়তে পছন্দ করেন তাদের জন্য আজকে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়ে এসেছি মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ বইটির পিডিএফ ফাইল। অল্প কয়েক পৃষ্ঠার এই বইটি যেকোনো শিশু বয়সের পড়তে সক্ষম বাচ্চা বইটি পড়ে আনন্দ পাবে। তাই আপনারা যারা বইটি এখনো পড়েন নি অথবা বইটি যাদের হার্ড কপি সংগ্রহ নাই তারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বইটির পিডিএফ ফাইল সংগ্রহ করে নিতে পারেন।

আপনাদের জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ বইটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ডাউনলোড করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে গিয়েই মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ পিডিএফ ডাউনলোড এর উপরে ক্লিক করুন এবং বইটি আপনাআপনি আপনাদের গুগোল ড্রাইভে ডাউনলোড হয়ে যাবে।

মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা মাত্র 16 টি। অন্যপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হওয়া মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ বইটির বর্তমান বাজারে মুদ্রিত মূল্য 100 টাকা। চমৎকার প্রচ্ছদ এবং রং বেরংয়ের ছবি যেকোনো বয়সের পাঠককে এই বইটি পড়তে আকর্ষণ করবে। তাই সমকালীন এই বইটি পড়তে পিডিএফ ফাইল সংগ্রহ করে নিন।

মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ বইটির কাহিনী সংক্ষেপ

নিতুর বয়স খুবই অল্প এবং সে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ে। তবে সে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়লেও তার বুদ্ধিমত্তা প্রখর এবং যেকোনো বিষয়কে সত্য অথবা মিথ্যা প্রভেদ করে ধরে ফেলতে পারে। সে তার বড় মামাকে খুবই পছন্দ করে এবং সে তার বড় আমার থেকে বিভিন্ন ধরনের গল্প শুনতে চাই। তবে নিতুর এক ধরনের বাতিক আছে যে সে কখনো বানানো গল্প বা মিথ্যা গল্প শুনতে চাই না। তাকে বলতে হবে সত্য গল্প এবং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন মজার গল্প। এই নিয়ে সে মামাকে বারবার বলে যে তাকে যেন মিথ্যা গল্প শোনানো না হয়।

একবার সে বাড়ির কাজের বুয়ার থেকে গল্প শুনতে চেয়েছিল এবং কাজের বুয়া থাকে একটি গল্প বলেছিল। গল্পের এক পর্যায়ে এসে যখন মৃত্যু বুঝতে পারে যে বুয়া বানিয়ে গল্প বলতে তখন সে বুয়াকে ধমক দেয় এবং গল্প আর শুনতে চাই না। ঠিক একই ভাবে সে তার মামাকে আজকে ধরেছে এবং তার মামার সামনে কিছু খাবার দাবার রয়েছে। তার মামা তাকে খাবার দাবার শেষ করে গল্প বলতে চাইছে। কিন্তু নিতু এখনই গল্প শোনার জন্য ব্যস্ত হয়ে উঠেছে।

তাই তার মামা গল্প শুরু করলেন চট্টগ্রামে যখন তিনি একটি স্কুলে শিক্ষক হিসেবে চাকরিতে যান সেই সময়। তবে গল্পের মধ্যে নেই তো কিছু কিছু অসংগতি পেয়ে যায় যেগুলো নি তো মিথ্যা মনে ভাবতে থাকে এবং সে বিষয়ে পাল্টা তার মামাকে প্রশ্ন করতে শুরু করে। তার মামা একজন স্কুলের হেডমাস্টার এবং হেডমাস্টার কখনো মিথ্যা কথা বলে না বলেনি নিতুকে জানাই। নিতুর মামা যখন চট্টগ্রামের স্কুলের চাকরি ঠিক করে তখন সেখানে একটি বাসা ভাড়া নেই এবং সেই ভাষাতেই একটি আলিশান বাড়ি।

এই বাড়ির ঘটনা নতুন মামানি তোকে বলতে থাকে এবং নিতু একসময় ঘটনাটি সত্য মনে করে আনন্দ পেতে শুরু করে। তবে এই বাসার সংগে মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ কিভাবে সংগতিপূর্ণ এবং এই অটোগ্রাফের কাহিনী কি তা জানতে হলে আপনারা পুরো বইটি পড়বেন। কারণ সংক্ষিপ্ত এ বইটির সংক্ষিপ্ত আলোচনা করতে গিয়েও অনেক কাহিনী আপনাদেরকে ইতোমধ্যে বলে দিয়েছি। বাকি কাহিনীটুকু আপনারা বই পড়ে জেনে নিবেন।

মিরখাইয়ের অটোগ্রাফ PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.