উপন্যাস

মিসির আলির চশমা PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

মিসির আলিকে চেনো না এমন পাঠক খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাছাড়া মিসির আলি অনেক আগ থেকেই পাঠক মহলে অনেক আনন্দিত হয়ে আছেন। তাই আমাদের ওয়েবসাইটে একে একে মিসির আলি সিরিজের সবগুলো বই আপলোড করেছি আপনাদের জন্য। আপনারা যারা মিসির আলি সিরিজের বইগুলো পড়তে ভালোবাসেন তারা এই পোষ্টের মাধ্যমে মিসির আলির চশমা বইটির পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন।

আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে মিসির আলির চশমা বইটির পিডিএফ ফাইল দিয়ে দেওয়া আছে। আপনারা সেখানে গিয়ে মিসির আলির চশমা বইটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এবং খুব সহজ উপায়ে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। মিসির আলির চশমা বইটি অন্যপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বর্তমান বাজারে বইটির মুদ্রিত মূল্য ২২৫ টাকা। হে বইয়ের পৃষ্ঠা রয়েছে মোট 80 টি।

আশা করি যে কোন পাঠক এই বইটি পড়তে বসলে একবারেই শেষ করে ফেলতে পারবেন। কিছু রহস্য নিয়ে মিসির আলি এই বইয়েও সমাধান করে চলেছেন। তবে এই বইয়ে মিসির আলি রহস্য সমাধানের জন্য সংযুক্ত করেছেন লেখক কে। অর্থাৎ বইয়ের লেখককে রহস্য সমাধান এর জন্য সরাসরি ভাবে কাজ করতে দেখা যাবে। তাহলে চলুন আর দেরি না করে আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে এ বইটির পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করে নিই।

মিসির আলির চশমা Review

অনেকেই মিসির আলির চশমা বইটি রিভিউ চেয়ে ছিলেন। তাই আপনাদের সুবিধার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে মিসির আলির চশমা বইটির পিডিএফ ফাইল আপলোডের পাশাপাশি এই বইটি রিভিউ দেয়ার চেষ্টা করছি। মিসির আলী তার চোখ দেখানোর জন্য শহরের স্বনামধন্য চোখের ডাক্তার হারুন চৌধুরীর কাছে যান। সেখানে তিনি চোখ পরীক্ষা করান। চোখ পরীক্ষা করানোর ফাঁকে হারুন তার স্ত্রীর সঙ্গে কথোপকথন চালাই।

এই কথোপকথন এর মাঝে মিসির আলি ধরে ফেলেন যে ডাক্তারের সঙ্গে স্ত্রীর কোন বিষয়ে মনোমালিন্য চলছে। আর ডাক্তারের দেরি করে চেম্বার থেকে ফেরার জন্য বুঝতে পারলেন যে এই দিনটি বিশেষ একটি দিন। ডাক্তারের কাছে এই সত্যতা যাচাই করতে চাইলে ডাক্তার তার অনুমান সত্য বলে নিশ্চিত করেন। ডাক্তার খুব সহজেই মিছির আলীকে চেনে ফেলেন। চেম্বার থেকে যাওয়ার পথে মিছির আলীকে গাড়িতে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। পরে মিশির আলীকে তার স্ত্রীর বিষয়ে বলেন এবং হারুন জানান যে তার মৃত মা সব সময় তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখে।

পরবর্তীতে মিসির আলি ডাক্তার হারুনের স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন এবং তিনি মিসির আলীকে একটি দীর্ঘ চিঠি দেন। এই চিঠি পড়ে মিসির আলি অনেকগুলো সমস্যা খুঁজে পান। তিনি এই সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য সরাসরি লেখককে সংযুক্ত করেন। তারা ধাপে ধাপে এই সমস্যা গুলোর সমাধান করতে থাকেন।

প্রকৃতপক্ষে ডক্টর হারুন ছোটকাল থেকে ছিলেন চরম ভক্ত। বিবাহের পর থেকে তার মায়ের প্রতি অতিরিক্ত সময় দেওয়া এবং স্ত্রীকে সময় না দেওয়ার কারণে কলহ বাড়তে থাকে। তাছাড়া মায়ের মৃত্যুর পরেও হারুনকে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে তার মায়ের। মূলকথা এইসব বিষয় গুলোর কারণে হারুন এবং তার স্ত্রীর মধ্যে যে দাম্পত্য সম্পর্ক হওয়া উচিত ছিল, সেটা ঠিক গড়ে ওঠেনি। তাছাড়া চিঠিতে হারুনের স্ত্রী উল্লেখ করেছেন যে, তার এক সন্তানকে তার শাশুড়ি মেরে ফেলেছে। তাহলে এই সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য আপনার এই বইটি ডাউনলোড করে নিয়ে পড়ে ফেলুন।

মিসির আলির চশমা PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.