উপন্যাস

নীল মানুষ PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

আপনি যদি হুমায়ূন আহমেদ স্যারের নীল মানুষ বইটি পড়তে চান, তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে এই বইটি পেয়ে যাবেন। নীল মানুষ বইটির পিডিএফ ফাইল আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে দেওয়া আছে। আপনারা চাইলে যেকোন সময়ে এই বইটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এবং অবসর সময়ে বইটি পাঠ করতে পারবেন। যারা হুমায়ূন আহমেদ স্যারের অন্যান্য বই পড়েছেন এবং এই বইটি পড়েননি তাদের জন্য এখন কাজ হবে, নীল মানুষ বইটি ডাউনলোড করে নেওয়া এবং পড়ে ফেলা।

নীল মানুষ একটি সমকালীন উপন্যাস। এই উপন্যাসটি অন্যপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বর্তমান বাজারে এই বইটি যদি আপনি কিনতে চান তাহলে মুদ্রিত মূল্য হবে 250 টাকা। এই বইয়ের পৃষ্ঠা সংখ্যা রয়েছে 96 টি। তাছাড়া আপনারা যদি পিডিএফ ফাইল পেতে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে এই বইটির পিডিএফ ফাইল খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।

নীল মানুষ কাহিনী সংক্ষেপ

ফরহাদ সাহেব একজন মধ্যবয়স্ক লোক এবং তিনি পেশায় একজন চাকরিজীবী। তিনি দীর্ঘ 20 বছর ধরে কোন মিথ্যা কথা বলেননি এবং আর কয়েকদিন হলেই তার এই বিশ বছর পূর্ণ হবে। তার ভেতরে এমন ধারণা জন্মেছে যে, মিথ্যা না বলার কারনে সে এক কোন ধরনের আধ্যাত্মিক ক্ষমতা লাভ করবে। হঠাৎ সাহেবের তিন মেয়ে রয়েছে। এই তিন মেয়ের নাম হল নিতু সেতু এবং মিতু। ফরহাদ সাহেবের আরো একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। এই ছেলের নাম হলো সঞ্জয়। মোটামুটি ভাবে তার সুখের সংসার সুন্দর ভাবে দিন কাটাচ্ছে।

তবে তার বাড়িতে আরো একটি মেয়ে থাকে। সেই মেয়েটির নাম হলো কনক। ফরহাদ সাহেব এই মেয়েকে কন্যার মতো ভালোবাসা প্রদান করেন। কনক হলো ফরহাদ সাহেবের বন্ধু বদরুল ইসলাম এর মেয়ে। বদরুল ইসলাম হঠাৎ করেই একদিন নিরুদ্দেশ হয়ে যান। বাজার থেকে তিনি ইলিশ মাছ কিনে আনার পরে সরিষা কিনতে যান এবং তারপর থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে যান।

তাছাড়া কনকের মা কনক কে চাপিয়ে দেন ফরহাদ সাহেবের ঘাড়ে। হঠাৎ সাহেবের দ্বিতীয় স্ত্রী রাহেনা কনককে রাখার ব্যাপারে আপত্তি জানায়। তবে পরবর্তীতে তিনি ও কনককে প্রচন্ড ভালোবাসেন। ফরহাদ সাহেবের একটি বিশেষ ইচ্ছে রয়েছে এবং সেই ইচ্ছা হল কনককে তার ছেলে সঞ্জয়ের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া।

সঞ্জয় এম এ পাস করে বর্তমানে বসে আছে। তাকে কনকের বিষয়ে বলা হলে সেই বিষয়ে আপত্তি জানায়। কারন সে কনককে পছন্দ করেনা। যেহেতু বর্তমানে ফরহাদ সাহেবের ঘরে দ্বিতীয় স্ত্রী রয়েছে সেহেতু তার প্রথম স্ত্রীর ভাই ইস্তিয়াক একদিন তাকে একটি বিশেষ কারণে ডাকে। ইশতিয়াক সাহেব পেশায় একজন পুলিশ অফিসার। তিনি ফরহাদ সাহেব কে জানাইছে সঞ্জয় কোন একটি অপরাধের মধ্যে জড়িয়ে পড়েছে। সম্প্রতি হাসনাত সাহেবের খুনের ব্যাপারে সঞ্জয় জড়িয়ে পড়েছে এবং এতে তার মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। পরবর্তীতে যখন সঞ্জয়ের বড় মামা সালুর কাছে সঞ্চয় এর বিপদ নিয়ে সাহায্য চান। বড় মামা সাহায্য করার বিষয়ে নিশ্চিত করেন।

তবে সমস্যা সমস্যাই থেকে যায়। এদিকে ফরহাদ সাহেবের সত্য কথা বলার 20 বছর পূর্ণ হয়ে যায়। তিনি এই নিয়ে বাড়িতে খুব আনন্দে দিন কাটান। তবে তার সন্তান সঞ্জয় কি বাঁচতে পারবে? আপনার ছেলের খুনের সঙ্গে তার সম্পর্ক কি এবং পরিশেষে সঞ্জয়ের কি ঘটেছিল তা জানতে হলে আপনাকে পুরো বইটি পড়তে হবে। চমৎকার এই বইটি আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নীল মানুষ PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.