উপন্যাস

নীল অপরাজিতা PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

বাংলাদেশের অন্যতম ঔপন্যাসিক হুমায়ুন আহমেদ রচিত অসাধারণ একটি উপন্যাস হল ‘ নীল অপরাজিতা’। এটি হুমায়ুন আহমেদ রচিত একটি অসাধারণ উপন্যাস। বইটি প্রকাশিত হয়েছে ১৯৯০ সালে। বইটির ৪তম সংস্করণ হয় ২০১৫ সালে। বইটি প্রকাশিত হয় মওলানা ব্রাদার্স প্রকাশনী থেকে। বইটি হার্ডকাভারে ছাপা হয়েছে। বইটির মোট পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ৭০টি। বইটির বাংলাদেশি মুদ্রিত মূল্যঃ ১৬০ টাকা। বইটির অনলাইন পিডিএফ সাইজ ১৩ এমবি।

এটি একটি সমকালিন উপন্যাস। একজন লেখকের জীবন কাহিনী নিয়ে এই উপন্যাসটি রচিত হয়েছে। বইটি পড়তে চাইলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে ফ্রি পিডিএফ ডাউনলোড করে পড়তে পারবেন। এখনো বইটি যারা পড়েননি তারা আজই আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে বইটি পড়ে ফেলুন।

নীল অপরাজিতা উপন্যাসের মূল কাহিনী

একজন ভালো লেখকের কাহিনী নিয়ে এই উপন্যাসটি লেখা হয়েছে। লেখকের নাম হল শওকত। সেই লেখকের জীবন কাহিনী নিয়েই বইটি লেখা হয়েছে। তিনি একজন বিখ্যাত লেখক। তিনি গ্রামীণ পরিবেশে এসে একটু লেখালেখি করতে চাইছেন। এইজন্য তিনি ২০ দিনের জন্য ঠাকরকোনা গ্রামে এসেছেন। তিনি গ্রামের কোলাহল, শহরের হৈচৈ মুক্ত গ্রামে এসে থাকতে চেয়েছেন। এই গ্রামে ঘুরতে আসার পরামর্শ তাকে দিয়েছেন মহাকবি বজলুর রহমান। তিনি বলেছেন গ্রামটা ভীষণ সুন্দর। কিন্তু তিনি গ্রামে আসার পর দেখলেন সেরকম কিছুইনা।

সংসারে বিভিন্ন রকম ঝামেলা আর অশান্তির কারণে তিনি একা থাকতে চেয়েছেন কিছু দিন। এজন্য তিনি গ্রামের নিরিবিলি পরিবেশে এসেছেন। গ্রামে এসে তার দেখাশোনা করছেন মোফাজ্জল করিম নামের একজন লোক। তিনি হলেন ময়নাতলা হাইস্কুলের একজন শিক্ষক। তিনি অত্যন্ত নরম প্রকৃতির মানুষ। শওকত সাহেব তাকে অনেক অপমান করলেও তিনি কিছু মনে করেন না।

কম কথা বলা ধরণের মানুষ তিনি তবুও শওকতের সাথে অনেক গল্প করেন। তিনি যখন বলেন তখন বলতেই থাকেন অপর মানুষের কথা তিনি শোনেন না। এজন্য শওকত তাকে অপমান করেন। শওকত মনে করেছিলেন গ্রামের পরিবেশ শান্ত হবে। কিন্তু এইখানে এসে দেখলেন সব তার উল্টো। গ্রামের মানুষ প্রচুর কথা বলে। তারা যখন কথা বলে অন্য কারো কথা শোনে না। তাই শওকত সাহেব বিরক্তবোধ করছেন।

এরপর কাহিনী এগিয়ে যায় পুষ্পকে নিয়ে। পুষ্পকে মূলত এই গল্পের নায়িকা বিবেচনা করা হয়। পুষ্পের সাথে গ্রামে এসে পরিচয় হয় শওকতের। প্রথমে শওকত তাকে মোটেই পছন্দ করতো না, সবসময় অপমান করতো। অনেক খারাপ ব্যবহার করে তার সাথে। কিন্তু পুষ্প এইসব কিছুই মনে করে না। একদিন প্রচণ্ড ঝড়ের মধ্যে পড়ে যায় শওকত। তখন তার মর মর অবস্থা হয়। সে সময় তাকে পুষ্প সেবা যত্ন করে সারিয়ে তোলেন। এরপর বিভিন্ন ছোট খাটো বিষয় নিয়ে পুষ্পের প্রতি তার ভালোলাগা তৈরি হয়ে যায়।

কিন্তু শওকত খুব একটা ভাবেন না আর বুঝতেও পারেন না এইটা ভালোবাসা কিনা। এইটা ভালোবাসা হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। কারণ শওকত একজন বিবাহিত লোক এবং তার একটি বড়ো মেয়েও রয়েছে। এরপর গ্রামে থেকে বিভিন্ন দৃশ্য তিনি উপভোগ করেন। যেমন- মাঠে যাওয়া দেখা, বৃষ্টির দৃশ্য দেখা ইত্যাদি।

এরপর তৃতীয় ব্যক্তির আগমন হয় উপন্যাসে। সেই লোকটাকে নিয়েই নতুন গল্পের সূচনা হয়। সেই গল্পটা হয় একটি অসাধারণ একটি গল্পের যা উপন্যাের মূল বিষয়। কে সেই ব্যক্তি, আর কি গল্পের সূচনা হয় সেসব জানতে হলে পড়তে হবে হুমায়ুন আহমেদের ‘ নীল অপরাজিতা’।

নীল অপরাজিতা PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.