উপন্যাস

পেন্ডুলাম PDF Download মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন

পেন্ডুলাম বইটি বিখ্যাত লেখক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের লেখা একটি উল্লেখযোগ্য বই। পেন্ডুলাম বই-এর পিডিএফ ফাইল যদি আপনারা ডাউনলোড করতে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের সকল মৌলিক এবং অনুবাদ বই এর পিডিএফ ফাইল আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে পাবেন। মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের পেন্ডুলাম বইটির পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটের নিচে দেখুন।

মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের পেন্ডুলাম বইটি সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ৩১৭ টি। পেন্ডুলাম বইটি বাংলাদেশের বিখ্যাত প্রকাশনী বাতিঘর প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বাতিঘর প্রকাশনীর সকল বইয়ের পিডিএফ ফাইল আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে খুব সহজেই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

বইটি যখন পড়তে যাবেন তখন আপনারা পেন্ডুলামের মত এক নিত্য দোলাচলে দুলতে থাকবেন। তাই দেরি না করে আপনারা পেন্ডুলাম বইটি ডাউনলোড করে নিন এবং পড়তে থাকুন। নিচে পেন্ডুলাম বই সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা তুলে দেওয়া হল-

গল্পের শুরুতে সাবেক রেডিও জকি মায়া এবং চারু আহসানের কথা জানতে পারা যায়। দুইজনেই বিভিন্ন পরিস্থিতির কারণে চাকরি ছাড়তে বাধ্য হয়। তারা আলাদা আলাদা থাকে। কেউ কাউকে চেনে না। হঠাৎ করেই একদিন তাদের ঠিকানায় চলে আসে একটি চিঠি। যেটি বিশেষ করে তাদেরকে পাঠানো হয়েছে। চিঠি পাঠিয়েছেন ডঃ আজফার হুসাইন।

তিনি তাদের দুজনকে বিশেষভাবে নির্ধারণ করেছেন। যাতে তাঁর দেওয়া নির্ধারিত কাজ বা অ্যাসাইন্মেন্টা সমাধান করে দিতে পারে। ঘটনাক্রমে তারা একদিন দেখা করতে আসে ডক্টর আজফার হোসেনের বাড়িতে একটা সময়। তারা অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ করে। নির্দিষ্ট একটা পারিশ্রমিকে।

তাদের এসাইনমেন্ট এর উদ্দেশ্য হলো নির্দিষ্ট কোন একটা তারিখে বড় লোকের অর্থাৎ সন্তান হওয়ার রহস্য ঘিরে। আজহার হুসাইন কোনো গোয়েন্দা বিভাগের লোক নয়। তিনি এ ঘটনায় ইতোপূর্বে শুনেছেন। আর সেই জন্যই তিনি ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেই ঘটনার সাথে কারা জড়িত এবং ঘটনার পেছনের রহস্যটা কি সেটা জানতে আগ্রহী।

তার জন্যই তিনি বিপুল টাকা খরচ করে দুই জন প্রার্থী কে নিয়োগ করেন। মায়া এবং চারু আহসান দুজনেই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে চাকরিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তারা কাজ শুরু করেন। বড়লোকের ছেলে মিশকাত তার বন্ধুদের নিয়ে তাদের বাংলোবাড়িতে একটি অনুষ্ঠান করে। এই অনুষ্ঠানে তাদের এক বন্ধু আসতে দেরি করে।

পরে বন্ধুর সাথে অনেক কথাবার্তা হয়। একসময় বন্ধু আসে আর সেই রাতেই খুন হয় বড়লোকের একমাত্র সন্তান মিশকাত। পরবর্তীতে যে বন্ধু দেরিতে এসেছিল সে বন্ধুকে আর পাওয়া যায় না সেই ঘটনাস্থলে। খোঁজ নিয়ে জানা যায় যে বন্ধু দেরিতে এসেছিল, সেই বন্ধুটি গতরাতে অ্যাক্সিডেন্ট করে মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

তাহলে ঘটনাটি ঘটেছিল কিভাবে? এটি জানতে হলে পাঠক আপনাকে বইটির ভিতরে যেতে হবে। আর যদি আপনাদের তর না সয়, তাহলে আমরা এখানে রহস্য সমাধান করে দিতে পারি। কী রহস্য সমাধান জানতে ইচ্ছে করছে? তাহলে রহস্যটা রহস্যই থাক। আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বইটি ডাউনলোড করে নিয়ে শেষ করুন। তাহলে রহস্য উদঘাটন করতে পারবেন। বিভিন্ন ধরনের বই এর পিডিএফ ফাইল পেতে আপনারা আমাদের সাথেই থাকুন।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.