আত্মজৈবনিক গ্রন্থ

রংপেন্সিল PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

আপনারা কি জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের রংপেন্সিল বইটি ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন? তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে রংপেন্সিল নামক আত্মজীবনী বইটির ডাউনলোড করতে পারবেন। রংপেন্সিল পিডিএফ আমাদের ওয়েবসাইটে দেওয়া আছে। সেটা আপনারা খুব সহজেই সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। হুমায়ূন আহমেদের রংপেন্সিল পিডিএফ ডাউনলোড করতে নিচে দেখুন।

রংপেন্সিল পিডিএফ ডাউনলোড

রংপেন্সিল বইটিতে হুমায়ূন আহমেদ অনেকগুলো অধ্যায় নিয়ে এসেছেন। সেগুলো হলো অমরত্ব, প্রসঙ্গ- আত্মা, আইনস্টাইন ও ইন্দুবালা, বসন্ত বিলাস, আজি এই বসন্তে, অদৃশ্য মানব, এর বর্ষবরণ, একজন আমেরিকান চোখে বাংলা বর্ষবরণ, উৎসব, মুখোশ পরা জাদুঘর, জাদুকর, জুকারবার্গের দুনিয়া, করুনাধারা রবি এবং রবি, একটি কাগজি লেবু এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বাউলা কে বানাইলো রে, নিষিদ্ধ গাছ, জিনের বাদশা, মহাদেশের মহাযাত্রা, দেবতা কি গ্রহান্তরের মানুষ, রেলগাড়ি ঝমাঝম, নেতা অধ্যাপক ইউনুস ও ভালোবাসা।

কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ একজন দেশপ্রেমী তা উঠে এসেছে তার অধ্যাপক ইউনুস নামক লেখাটিতে। তিনি অধ্যাপক ইউনুসকে ব্যক্তিগতভাবে চিনেন না। কিন্তু তার প্রতি তাঁর অবিরাম ভালোবাসা রয়েছে। তার একটি বই উৎসর্গ করেছেন ডক্টর ইউনুস এর জন্য।

যখন ডক্টর ইউনুস নোবেল পুরস্কার পেয়ে যায় তখন তিনি অনুষ্ঠান পালন করেন। কারণ তিনি তার দেশকে ভালবাসেন, দেশের মানুষকে ভালোবাসেন। ডক্টর ইউনুস নোবেল পুরস্কার পাওয়ার মাধ্যমে দেশকে উপরে তুলে ধরেছে। তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হুমায়ূন আহমেদ।

অশরীরী সুর নামক লেখাটিতে হুমায়ূন আহমেদ তার রাইটিং ব্লক এর কথা বলেছেন। তিনি লিখতে বসে আর লিখতে পারছেন না। তার হাতের নখ গুলো আরো ছোট হয়ে আসছে। এজন্য অন্যপ্রকাশের স্বত্বাধিকারী নজরুল ইসলাম তার জন্য একটি টেপ রেকর্ডার নিয়ে আসেন। যাতে তিনি বলতে পারেন এবং তার লেখাগুলো টেপ রেকর্ডার এ রেকর্ড হয়ে যেতে পারে।

টেপ রেকর্ডারের কথা যখন উঠেছে। তখন তিনি ইভিএম নামক একটি তত্ত্ব ও বিশ্লেষণ করেন। টেপ রেকর্ডারের বিভিন্ন যন্ত্রাংশের কথা তুলে ধরেন। পৃথিবীজুড়ে ইভিএম নিয়ে মাতামাতি শুরু হয় সেটা তিনি সুন্দর ভাবে বিশ্লেষণ করেন। কিভাবে কাজ করে ইত্যাদি বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন। পরবর্তীতে তিনি নুহাশপল্লী থেকে ঘুরে এসে তার বিখ্যাত উপন্যাস মধ্যাহ্ন লেখা শুরু করেন।

হুমায়ূন আহমেদ যখন চিটাগাং কলেজের স্কুলের ক্লাস সেভেনের পড়াশোনা করত, তখন তার শ্রেণি শিক্ষক একদিন তাদেরকে প্রিয় ঋতু লিখতে দেয়। হুমায়ূন আহমেদ প্রিয় ঋতু নিয়ে কি লিখবে ভেবে পাইনা। পরিশেষে তিনি তার প্রিয় ঋতু রচনা লেখার খাতা দেখলে অনেক বকাবকি করেন।

কারণ প্রিয় হওয়ার কথা ঋতুরাজ বসন্ত। কিন্তু তা না করে হুমায়ুন আহমেদ করেছেন প্রিয় ঋতু শীত। পরবর্তীতে তিনি এ বিষয়ে অনেক আলোচনা করেন। রবীন্দ্রনাথের প্রিয় ঋতু বসন্ত হলেও অনেক জায়গায় তিনি কথা বলেছেন। আমাদের হুমায়ুন আহমেদ প্রকৃতপক্ষে বর্ষাকালকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছেন।

তাছাড়া তিনি বসন্ত পছন্দ করতেন। উঠে এসেছে নজরুলের কথা। যিনি তাঁর বিভিন্ন লেখায় ঋতুকে প্রাধান্য দিয়েছেন। হুমায়ূন আহমেদ নুহাশপল্লীতে ঋতুরাজ বসন্তের সুন্দর ভাবে সেই অনুষ্ঠানগুলো উদযাপন করতেন। গান-বাজনা হৈ-হুল্লোড় পাখিদের কলকাকলি ইত্যাদি ছাপিয়ে উঠত নুহাশপল্লীর পরিবেশ। বর্তমান তরুণ প্রজন্মের কাছে এমন ছিল প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ।

তাই আপনারা রংপেন্সিল বইটি ডাউনলোড করে নিয়ে আরও বিস্তারিত তথ্য এবং হুমায়ূন আহমেদের জীবনে ঘটে যাওয়া রোমাঞ্চকর ঘটনা গুলো পড়ুন।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.