উপন্যাস

সেদিন চৈত্রমাস PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

বাংলাদেশের বিখ্যাত কথাসাহিত্যিক ও ঔপন্যাসিক হুমায়ুন আহমেদ রচিত অসাধারণ একটি উপন্যাস হল ‘ সেদিন চৈত্রমাস ‘। হুমায়ুন আহমেদের সবগুলো উপন্যাসের মধ্যে এটি একটি অসাধারণ উপন্যাস। বইটি প্রকাশিত হয় ২০০৬ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে। আবার বইটির ৮তম সংস্করণ হয় ২০১৫ সালে। বইটি প্রকাশ করেছে অনন্যা প্রকাশ প্রকাশনী। বইটি হার্ডকাভারে ছাপা হয়েছে। বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা হলঃ ১২৬ টি। বইটির বাংলাদেশী মুদ্রিত মূল্যঃ ২০০ টাকা। বইটির অনলাইন পিডিএফ সাইজ হচ্ছে ১০ এমবি।

‘সেদিন চৈত্রমাস ‘ একটি সমকালীন উপন্যাস। বইটি হুমায়ুন আহমেদ রচনা করেছেন এবং এটি একটি চমৎকার উপন্যাস। হুমায়ুন আহমেদ সাহিত্যের সব ক্ষেত্রে বিচরণ করেছেন। ছোট বড় সবাইকে তিনি উপহার দিয়েছেন অসাধারণ আর মজাদার সব বই। তাই তো তিনি সকলের হৃদয়ে চির অম্লান হয়ে আছেন। অসাধারণ এই বইটি পাঠকরা পড়তে চাইলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে ফ্রী পিডিএফ ডাউনলোড করে পড়তে পারবেন। চমৎকার এই বইটি যারা এখনো পড়েননি তারা তাড়াতাড়ি আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আজই বইটি পড়ে ফেলুন।

সেদিন চৈত্রমাস উপন্যাসের মূল কাহিনী

এই উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র হল মবিন সাহেব। তিনি ছোটবেলায় এতিমখানায় বড় হয়েছেন। তিনি যে বাড়িতে থাকেন তার নাম আতর বাড়ি। তবে তিনি একজন অদ্ভুত স্বভাবের লোক। ছোটবেলায় এতিম খানায় বড় হলেও তিনি এখন বিশাল একজন ধনী লোক। সারাজীবনে তিনি টাকা পয়সা কামিয়ে অনেক টাকার মালিক হয়েছেন।

তার টাকার হিসাব রাখার জন্য চারজন লোক নিয়ে একটি চার্টার্ড একাউন্টস আছে। তার ব্যাংকে যত টাকা আছে সেই টাকার ইন্টারেস্ট ই আসে প্রায় কোটি টাকার মতো। তবে আজকের এই অবস্থানে তিনি এসেছেন সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টায়। ধনী ব্যক্তিরা সাধারণত টাকার নেশা ছাড়তে পারেনা। কিন্তু মবিন সাহেব সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। তিনি তার ব্যাবসা ছেড়ে আরাম আয়াশে কাটাতে চান। এজন্য তিনি তার কাজকর্ম এখন বাদ দিয়েছেন।

এরপর কাহিনী এগিয়ে চলে শফিক নামের একটি লোকের সাথে। দেখা যায় শফিক অভাবের কারণে তার খুব কষ্ট করে জীবন যাপন করে তার স্ত্রী আর মেয়েকে নিয়ে। তার স্ত্রীর নাম হল মিতু আর মেয়ের নাম নিশো। শফিকের ইচ্ছা তার বাবা মাকে তার সাথে নিয়ে এসে রাখবে কিন্তু ছোট বাসা আর অভাবের কারণে তা সম্ভব হয় না। এরপর শফিক মবিন সাহেবের কাছে তার চাকরি পায়। শফিক মবিনের পিএ হিসেবে যোগদান করে। শফিককে বেতন ১৫ হাজার টাকা দেওয়া হয়। আর তারপর অফিস থেকে শফিককে ব্যবহারের জন্য মোবাইল ফোন আর গাড়ি দেওয়া হয়। তারপর তাকে চার রুমের একটা ফ্ল্যাট দেওয়া হয়। কিম্তু এতো কিছু পাওয়ার পরেও শফিক তার স্যার মবিন সাহেবকে পছন্দ করেন না।

মবিন সাহেবকে নিয়ে ঘটনা এগোতে থাকলে তার জীবনের আরেকটি রহস্য উন্মোচন হয়। তিনি সব সময় অদ্ভুত চরিত্রের লোক। তার জীবনেও তিনি এরকম একটা অদ্ভুত ঘটনা ঘটিয়েছিলেন। তিনি একটা মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন ৭ ঘন্টার জন্য। সেই বিয়েটা হয় রাত ১২ টা ১ মিনিটে আর সকাল আটটায় তিনি ডিভোর্স দিয়ে দেন। এর সেই মেয়েটির আবার অন্য জায়গায় বিয়ে হয়। তারপর সেখানে একটি মেয়েও হয়। মবিন সাহেব মনে করেন মেয়েটি তার। তাি তিনি সবসময় তাদের নজরদারির মধ্যে রাখতে চান। তাই শফিকের চাকরি হল সার্বক্ষণিক তাদের খোঁজ খবর রাখা। শেষ পর্যন্ত উপন্যাসের চরিত্র গুলোর পরিণতি কি হয় জানতে হলে পড়তে হবে ‘ সেদিন চৈত্রমাস ‘।

সেদিন চৈত্রমাস PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.