উপন্যাস

শ্রাবণ মেঘের দিন PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে হুমায়ূন আহমেদ স্যারের শ্রাবণ মেঘের দিন বইটি ডাউনলোড করতে পারবেন। আপনাদের জন্য এই বইটি আমাদের ওয়েবসাইটে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ডাউনলোড করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যারা হুমায়ূন আহমেদ স্যারের চমৎকার এই বইটি পড়েননি তারা এখন‌ই পিডিফ ফাইল ডাউনলোড সংগ্রহ করে নিন। আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের নিয়ে গেলেই আপনারা শ্রাবণ মেঘের দিন বইটির পিডিএফ ফাইল পেয়ে যাবেন।

শ্রাবণ মেঘের দিন বইটি প্রকাশিত হয়েছে সময় প্রকাশন থেকে। এই বইটিতে পৃষ্ঠা রয়েছে মোট 200 টি এবং বইটির বর্তমানে বাজারে মুদ্রিত মূল্য 300 টাকা। সমকালীন এই উপন্যাসটি প্রত্যেকটি প্রশ্নের ভালো লাগবে বলে মনে করি।

শ্রাবণ মেঘের দিন বইটির কাহিনী সংক্ষেপ

সুখানপুর দ্বীপের মাঝে একটি গ্রাম। এই দ্বীপের একজন রাজা হল এর ইরতাজউদ্দিন আহমেদ। বলতে গেলে তিনি এই দ্বীপে একজন অঘোষিত রাজা। তার দাপটে এলাকার মানুষজন সবসময় ভয়ে তটস্থ হয়ে থাকে। ইরতাজউদ্দিন আহমেদ সব সময় তার আভিজাত্য দেখাতে ব্যস্ত হয়ে থাকেন। আভিজাত্যের বড়াই যে কত বড় তাতার চরিত্রে আমরা দেখতে পাই। তবে তার এই আভিজাত্য থাকবে কিনা তা প্রথমেই বোঝা যায়।

উনার সন্তান শহরে চলে গিয়েছেন এবং সেখানে দুই কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। সেজন্য তার সন্তান তার আভিজাত্যের কারণে তার কাছে আসেনা এবং মেয়ে দুটো কেউ কখনো আসতে দেয় না। তবে ইরতাজউদ্দিন আহমেদের দুই নাতি হঠাৎ করে একদিন গ্রামে চলে আসেন। বড় জনের নাম শাহানা এবং ছোট জনের নাম নিতু। শাহানা পেশায় একজন ডাক্তার।

তাদের দাদাজান তখন তাদের গ্রামে ঘুরতে নিষেধ করে তখন তারা অবাধে গ্রামে ঘুরে বেড়ায় এবং গ্রামীণ পরিবেশে মানুষের সঙ্গে হেসে হেসে কথা বলে। এতে তাদের দাদাজানের ভেতরের যে আভিজাত্য আছে তা ক্ষুন্ন হলেও দুই নাতি কখনোই তার কেয়ার করে না। দুই নাতি হলো মানুষের সঙ্গে মিশে মানুষের অন্তরকে বোঝার জন্য সদা ব্যস্ত। যখন গ্রামে ঢোলবাদক পরান বাবুর স্ত্রী প্রসব বেদনায় কাতর তখন ছুটে যান বড় নাতনি শাহানা। তার পেশাদারিত্বে পরান বাবুর স্ত্রী বেঁচে যাই এবং পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়। জমিদার পরিবার সম্পর্কে এতদিন তাদের যে ধারণা ছিল তা এতদিনে ভেঙে দিয়েছেন শাহানা এবং নিতু।

ক্রমে ক্রমে গ্রামের মানুষের মধ্যে জমিদার পরিবার সম্পর্কে ধারণা ছিল তা পরিবর্তিত হয়ে থাকে এবং দুই নাতনির প্রতি অগাধ বিশ্বাস এবং ভালোবাসা নিয়ে গ্রামের মানুষজন বাঁচতে শুরু করে। কিন্তু তারা এসেছিল স্বল্প সময়ের জন্য। আবার একদিন তাদেরকে এ গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে যেতে হবে।

এই গ্রামেরই আরেক চরিত্র রয়েছে যার নাম কুসুম। আমাদের ভেতরে যে অভাব রয়েছে স্বভাবগুলো তার ভেতরে রয়েছে। দুনিয়ার বস্তুগত জিনিস এর চাইতে অবস্তুগত জিনিসের প্রতি তার মায়া-মহব্বত অনেক বেশি থাকায় সে মতি মিয়ার প্রতি দুর্বল। মতিমিয়া পেশায় একজন গায়ক এবং সে সব সময় তার পেশাদারিত্বের জন্য জায়গা জায়গায় গান গেয়ে ঘুরে বেড়াই। মতি নিয়ে আমাদের অন্তরের যে মুক্তি নামক বিষয় রয়েছে অর্থাৎ স্বাধীনতার প্রতিনিধিত্ব করে।

যার কোনো পিছুটান নেই। যে সুরে পাগল হয়েছে কুসুম সেই একই সুরে মুগ্ধ হয়েছে শাহানা। গায়ক মতি মিয়ার সঙ্গে বিয়ে না হওয়ার জন্য কুসুম একসময় বিষ খেয়ে ফেলে এবং ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়। কিন্তু ডাক্তার শাহানা ততক্ষণে গ্রাম ছেড়ে শহরের পথে পাড়ি দিয়েছে। ডাক্তার শাহানাজ নাগাল কি তারা পাবে বৈঠা বেয়ে? শেষ পরিণতি জানতে হলে আপনাদেরকে পুরো উপন্যাসটি পড়তে হবে।

আমার মতে এই উপন্যাসটি জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ এর জন্য একটি হীরকখণ্ড। গ্রামীণ পরিবেশে মানুষের অন্তরের যে বিষয়গুলো প্রতিনিধিত্ব করে তা বিভিন্ন চরিত্রের মাঝে ফুটে উঠেছে। প্রত্যেকটি লাইন এর মর্মার্থ করে পড়তে পারলে বইটি হয়ে উঠবে আপনাদের কাছে একটি উপজীব্য বিষয়।

শ্রাবণ মেঘের দিন PDF

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.