উপন্যাস

পারুল ও তিনটি কুকুর PDF Download হুমায়ূন আহমেদ

পারুল ও তিনটি কুকুর” জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্যারের অসাধারণ একটি উপন্যাস। বইটির নাম শুনে হয়তো মনে হবে বইটি অনেক হাসির কিন্তু বইটিতে এমন কিছু মজার জিনিস আছে যেটা আপনাকে পড়তে উৎসাহ যোগাবে। এই উপন্যাসটি হুমায়ূন আহমেদ স্যারের রচিত অন্যতম সেরা একটি।

যারা প্রতিনিয়ত হুমায়ূন আহমেদ স্যারের বই পড়েন তাদের জন্য বইটি অসাধারণ লাগবে।”পারুল ও তিনটি কুকুর” বইটির যদি এখনো আপনারা হার্ড কপি সংগ্রহ করতে না পারেন তাহলে চিন্তার কোন কারণ নেই। সেইসব পাঠকদের কথা চিন্তা করে আমাদের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন বইয়ের পিডিএফ ফাইল আমরা দিয়ে থাকি। তাই এই উপন্যাসটি পড়তে চাইলে আমাদের ওয়েবসাইটের নিচে গিয়ে ফ্রী ডাউনলোড করে পড়ে নিন।

“পারুল ও তিনটি কুকুর” একটি সমকালীন উপন্যাস। বইটি প্রথম প্রকাশিত 1995 সালে। বইটি প্রকাশ করেছেন পার্ল পাবলিকেশন্স। বইটিতে মোট পৃষ্ঠা সংখ্যা রয়েছে 120 টি।বইটির বর্তমানে মুদ্রিত মূল্য হল 132 টাকা। আমাদের ওয়েবসাইটে বইটির পিডিএফ আপনি পেয়ে যাবেন মাত্র 10 এমবি তে।উপন্যাসটির বিষয়বস্তু এতটাই অসাধারণ যে আপনাকে শেষ পর্যন্ত পড়তে উৎসাহিত করবে।

হুমায়ূন আহমেদ তাঁর রচনার দ্বারা সব মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন এবং সবাইকে সাহিত্যে মনোনিবেশ করতে সাহায্য করেছেন। তার বইগুলো না পড়লে এমন অনেক কিছুই অজানা থেকে যায়। তাই আমি নিঃসংকোচে বলতে পারি একবার হলেও বইটি পড়ে দেখুন ভালো লাগবে।

কাহিনী সংক্ষেপ

উপন্যাসটির প্রধান চরিত্র হল পারুল। সে গ্রামে থাকতো। পারুলের বর শহরে একটি বাড়িতে মালির কাজ করতো। তার বরের নাম ছিল তাহের।একদিন পারুলকে তার কাজের জায়গায় নিয়ে আসল। সেই বাড়িতে কেউ থাকত না আর বাড়ির মালিকেরা অনেক দূরে থাকতো।তাই বাড়ির দেখাশোনার ভার পারুলের বরের কাছেই থাকতো। বাড়িটির নাম নীলা হাউস।

কিন্তু বাড়িটা দেখতে বিরাট রাজপ্রাসাদের মত। বাহিরে থেকে বাড়িটা দেখা যায় না। কারণ বাড়ির চারপাশ দিয়ে উঁচু উঁচু দেয়াল দেওয়া। বাড়িটি অসম্ভব সুন্দর। সাধারণত এই ধরনের বাড়ি আগে কখনো দেখেনি। প্রথমে ঢুকেই পারুল অবাক হয়ে যায়। প্রথম দিন বাড়ি ঢুকে পড়ল চিৎকার করতে গিয়েও থেমে যায়। তার চোখে পড়ে তিনটা গ্রে হাউন্ড কুকুর। কুকুরগুলো অসম্ভব সুন্দর। সাধারণত কুকুরের চোখ রাতে জলে কিন্তু এই কুকুরের সবসময়ই জ্বলে থাকে। কুকুর গুলোর নাম নিকি, ফিবো ও মাইক।

এই কুকূরগুলো মেজবাউল স্যারের খুবই প্রিয়। মেজবাউল হক ছিলেন এই বাড়ির মালিক। কদিনের মধ্যে পারুলের সাথে তাদের খুব বন্ধুত্ব হয়ে যায়। পারুলের হাজবেন্ড অত্যন্ত বেরসিক, একদমই সময় দেয় না এজন্য কুকুর আর পারলে বন্ধুত্ব অনেক গাঢ় হয়ে যায়। সবকিছু ঠিক ঠাকই চলছিলো হঠাত করেই পারুল আসার পর দিন থেকেই অদ্ভুত অদ্ভুত কাহিনী ঘটতে থাকে। বাড়িতে পারুল বিভিন্ন রকমের শব্দ শুনতে পায়, একা একা কথা বলে। কুকুর দের নিয়ে অদ্ভুত কাহিনী ঘটাতে থাকে পারুল।

গল্পটির শেষাংশে এমন কিছু ঘটনা আছে যেটার জন্য আপনি ভাবতেও পারবেন না। এখানে লেখক অনেক গভীর কিছু ঘটনা তুলে ধরেছেন যেটা প্রায় সব পরিবারের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে হয়ে থাকে। এই উপন্যাসটি হুমায়ূন আহমেদ স্যারের অসম্ভব সুন্দর একটি বই। গল্পটির শেষের ঘটনাটা জানতে হলে অবশ্যই বইটা পড়তে হবে। তাই আর দেরি না করে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে ফ্রিতেই এই বইটি পড়ে ফেলুন।কথা দিতে পারি কিছুক্ষণের জন্য হলেও মনটা ভাল হয়ে যাবে।

Download

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *